জ্বালানী তেলের মূল্য বৃদ্ধিতে পজিটিভ চিন্তাভাবনা

আজ থেকে জ্বালানী তেলের মূল্য বৃদ্ধি পেয়েছে। ডিজেলের দাম লিটারে ৩৪ টাকা, অকটেনের দাম লিটারে ৪৬ টাকা আর পেট্রলের দাম লিটারে ৪৪ টাকা বাড়ানো হয়েছে। এর প্রভাব ঠিক কোন দিকে যাবে সেটা নিয়ে আলোচনা করার অনেক লোক পাওয়া যাবে। আমি সেদিকে যাচ্ছিনা। আমি আজকে আলোচনা করব যে, এই তেলের মূল্য বৃদ্ধির ফলে যে যে উপকার আপনি পাবেন, সেই সম্পর্কে। যেহেতু এই তেলের মূল্য বৃদ্ধি ঠেকানোর কোন উপায় আপনার আমার হাতে নেই, সেহেতু ভাল ভাল দিকের কথা চিন্তা করে মনে মনে সুখী হওয়া ছাড়া জনগনের আর কিছু করারও নেই। জ্বালানী তেলের মূল্য বৃদ্ধির ফলে আমরা কী কী উপকার পাবো তার একটা তালিকা দেখে নেওয়া যাক।

১। যেহেতু আমাদের প্রাণ প্রিয় সরকার এই তেলের দাম বাড়িয়েছে সেহেতু কোন না কোন দিক দিয়ে অবশ্যই উন্নয়নের পক্ষে হবে। আমরা সব সময় জানি যে সরকার সব সময় দেশ ও জনগনের উন্নয়নের পক্ষেই কথা বলে।

২। জ্বালানী তেলের মূল্য বৃদ্ধির ফলে মানুষ এখন নিজেস্ব গাড়ি কম কম ব্যবহার করবে। যাদের দুইটা গাড়ি ছিল তারা এখন একটা গাড়ি ব্যবহার করার চেষ্টা করবে। এছাড়া যেহেতু তেলের দাম বেড়েছে অধারিত ভাবে সাথে সাথে সিএনজি ভাড়াও ড্রাইভাররা বাড়িয়ে দিবে। তেলের মূল্যের সাথে যেহেতু সব কিছু জড়িতো। ফলে ঢাকা শহরে মানুষ বেশি বেশি গন পরিবহনে চলার চেষ্টা করবে। আর ব্যক্তিগত গাড়ি যত কম হবে তত ঢাকা শহরে জ্যাম কমবে। ফলে আপনি আগের থেকে কম সময়ে নিজেস্ব গন্তব্য পৌছাতে পারবেন। এছাড়া কম জ্বালানী গাড়ির ব্যবহার মানে কম পরিবেশ দূষণ। এতা সব থেকে বড় উপকার।

৩। তেলের মূল্য বৃদ্ধির ফলে গাড়ি গুলোতে সিএনজিতে কনভার্শনের পরিমান আরও বাড়বে। ফলে তেল চালিত ইঞ্জিন হতে যে পরিমান কঅ ধোঁয়া বের হয়ে পরিবেশ দূষিত করতো সেটা কমে যাবে। পরিবেশ হয়ে উঠবে সুজলা সুফলা উন্নয়ন শ্যমলা!

৪। মানুষ এখন দ্বি চক্রযান অ্থ্যাৎ সাইকেল কেনা এবং চড়া চেষ্টা করবে বেশি বেশি। এর ফলে আবারও পরিবেশ হয়ে উঠবে সুন্দর। সেই সাথে যারা নিয়মিত সাইকেল চালাবে তাদের দেহে একটা শারীরিক পরিশ্রম হবে। স্বাস্থ্য ভাল হবে। দেহের স্থুলতা কমবে। ডাক্তারের কাছে কম যেতে হবে। ডাক্তারী ঔষধ পত্র কম খরচ হবে । টাকা পয়সা বাঁচবে।

৫। তেলের মূল্য বৃদ্ধির ফলে সকল পরিবহনের ভাড়া বাড়বে। ফলে প্রায় সকল পন্যের দাম বাড়বে। এবং অবশ্যই এতে মূনালাও বাড়বে। হ্যা এটা সত্য যে টাকা বেশি যাবে জনগনের পকেট থেকেই তবে এটাও তো ভাবতে হবে সেই টাকা তো অন্য জনগনের পকেটেই যাচ্ছে। দেশের ভেতরেে উৎপাদন মূল্য বাড়বে যা দেশের জিডিপি বৃদ্ধি করবে। এই দিকটা তো ভেবে দেখতে হবে নাকি!

৬। তেলের মূল্য বৃদ্ধিতে সরকারের জ্বালানী ক্ষেত্রে ভুর্তূকী কমবে। ফলে কী হবে? এই অর্থ দিকে সরকার অন্য খাতে আরও বেশি বেশি উন্নয়নের কাজ করতে পারবে। দেশে আরও উন্নয়নের বন্যা বয়ে যাবে। দেশ আরও এগিয়ে যাবে।

আমাদের আসলে জীবনে সুখী এবং উ্নয়নের পক্ষে থাকার জন্য সব সময় সরকারের সকল সিদ্ধান্তের ভাল ভাল দিক নিয়ে আলোচনা করতে হবে। তাহলে দেশ এগিয়ে যাবে। আমরা একটা সুখী এবং উন্নত জাতি হিসাবে পৃথিবীর বুকে মাথা তুলে দাড়াতে পারবো।

Leave a Comment